Learn & Share Everything About of Technology.!

চুল পড়া সমস্যার সমাধানের কিছু কার্যকরি উপায় জেনে নিন হয়তো উপকারে লাগতে পারে।

মানুষের সৌন্দর্যের অন্যতম আকর্ষণ হচ্ছে চুল। সম্প্রতি সময়ে চুল পড়া সমস্যা বড় উদ্বেগের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এই সমস্যায় ভুগেছেন অনেকেই।

TipsRain.Com

মাত্রাতিরিক্ত চুল পড়ার কারণে পাতলা হয়ে যাচ্ছে মাথার চুল। এতে সৌন্দর্য হারাচ্ছেন আপনি। নানা রকম শ্যাম্পু ও তেল ব্যবহার করেছেন। আর শেষমেশ ডাক্তারের কাছে গিয়েও মিলছে না সমাধান।

যারা এই সমস্যা নিয়ে দুশ্চিন্তায় ভুগছেন তাদের জন্য রয়েছে ঘরোয়া সমাধান। ঘরোয়া কিছু নিয়ম মানলেই ৭ দিনেই আপনার চুল পড়া অনেক কমে যাবে।

এছাড়া প্রতিনিয়ত এই নিয়ম মেনে চললে চুল পড়ার সমস্যা থেকে মুক্তি মিলবে সহজেই।

আসুন জেনে নেই চুল পড়া বন্ধের ঘরোয়া উপায়

১. চুলের গোড়ায় গরম তেল ম্যাসেজ :

গরম তেল চুলের জন্য খুবই উপকারী। এ ক্ষেত্রে নারকেল ও বাদামের তেলে জুড়ি নেই। তেল গরম করার পরে ধীরে ধীরে আপনার আঙ্গুলের দ্বারা মাথার খুলিতে ম্যাসেজ করুন। এই ম্যাসেজ চুলের গোড়ায় রক্ত প্রবাহ বৃদ্ধি করে, শিকড়ে শক্তি বাড়ায় ও চুল পড়া রোধ করে।

২.পেঁয়াজ রস

TipsRain.Com

পেঁয়াজে উচ্চ মাত্রায় সালফার থাকে।পেঁয়াজের রস মাথায় নতুন চুল গজাতেও চুল পড়া বন্ধে সাহায্য করে। মাথার ত্বকে রক্ত সঞ্চালন বাড়ায় এবং এর অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়া উপাদান জীবাণুমুক্ত রাখতে সাহায্য করে।

পেঁয়াজের রস বের করে বাটিতে নিন। রসে তুলার ভিজিয়ে হাতের সাহায্যে মাথার ত্বকে লাগান। ৩০ মিনিট পর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে শ্যাম্পু করে ফেলুন। পেঁয়াজ রস একটানা সাতদিন ব্যবহারে পড়েই আপনি এর কার্যকারিতা দেখতে পাবেন।

৩. বিটরুট রস

TipsRain.Com

বীটরুটে পটাসিয়াম, ভিটামিন ‘বি’, ভিটামিন ‘সি’ ফসফরাস এবং প্রোটিন রয়েছে। বীটরুটে চুল পড়া বন্ধ, নতুন চুল গজানো ও চুল বৃদ্ধিতে সাহায্যে করে। এছাড়া মাথার ত্বকে রক্ত সঞ্চালন বাড়ায়। বীটরুটের রস করুন ও পাতা পানিতে সিদ্ধ করে ঘন করে নিন। এই উপাদান দুটির সঙ্গে সামান্য মেহেদি মিশিয়ে ঘন পেস্ট করে নিতে পারেন। মাথার তালুতে লাগানোর ৩০ মিনিট পর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

৪. সবুজ চা

TipsRain.Com

সবুজ চায়ে আছে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট। যা চুল পড়া রোধ ও বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। এক কাপ গরম পানিতে দুই ব্যাগ চা মিশিয়ে নিন। হালকা গরম থাকা অবস্থায় মাথায় লাগান। এক ঘণ্টা পর চুল ধুয়ে ফেলুন।

৫. আমলকি

চুল পড়ে যাওয়ার প্রধান কারণ হচ্ছে ভিটামিন সি’র অভাব। আমলকিতে প্রচুর পরিমানে ভিটামিন সি রয়েছে। আমলকি চুলপড়া বন্ধ, চুলের খুশকি দূর করে। আমলকির রস নারকেলের তেলের সঙ্গে মিশিয়ে চুলের গোড়ার লাগালে উপকার পাওয়া যায়।

৬. নিমপাতা

নিমপাতাকে বলা হয় সকল রোগের মহৌষধ। তেমনি এই চুলপড়া বন্ধ ও নতুন চুল গজাতে নিমপাতার জুড়ি নেই। নিম পাতা গরম পানিতে দিয়ে পেস্ট করে চুলে লাগানোর ৩০ মিনিট পর শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন। দুই সপ্তাহের মধ্যেই দেখবেন আপনার চুল পড়া অনেক অংশে কমে গেছে।

৭. ডিমের সাদা অংশ পেস্ট করে লাগান

ডিমের সাদা অংশে থাকা প্রোটিন এবং ভিটামিন চুলের পুষ্টি জোগায়।পাতলা চুলের সমস্যা দূর করে চুল ঘন ও মশ্রিন করে।দুটি ডিমের সাদা অংশ দিয়ে মাস্ক তৈরি করে মাথার ত্বকে ও চুলে লাগান।৩০ মিনিট অপেক্ষা পর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন।

৮. ধ্যান করুন

ধ্যান করলে চুল পড়া কমে অনেকের কাছে বিষয়টি হাস্যকর মনে হতে পারে। কিস্তু এটি সত্যি। অতিরিক্ত চাপ ও দুশ্চিন্তা চুল পড়ার মূল কারণ হয়ে উঠতে পারে। নিয়মিত ধ্যান আপনাকে চাপমুক্ত রাখে ও হরমোনের ভারসাম্য তৈরি করে।

Mehadi Hasan

About Mehadi Hasan

নিজেকে নিয়ে বলার মতো তেমন কিছুই নাই তবে প্রযুক্তি কে আমার ভালো লাগে তাই নিজেকে সবার মাঝে বিলিয়ে দেয়া।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *